কম্পিউটার টিপস্-04

সিডি বা ডিভিডি কনটেক্সট মেনুতে ইনসার্ট যোগ করা

সিডি বা ডিভিডি ড্রাইভের উপরের ডান বাটনে ক্লিক করে যে কনটেক্সট মেনু আসে সেখানে Eject ক্লিক করলে সিডি বা ডিভিডি ড্রাইভ খোলেকিন্তু একইভাবে (ডিক্স) ইনসার্ট করার ব্যবস্থা নেইরেজিষ্ট্রি এডিট করে এবং একটি লাইব্রেরী ফাইলের সাহায্যে আপনি এই কনটেক্সট মেনুতে ইনসার্ট যোগ করতে পারেনএজন্য http://www.mehdi-akram.tk থেকে cdeject.zip ফাইলটি ডাউনলোড করে আনজিপ করুনএবার cdeject.dll ফাইলটি সিস্টেম ফোল্ডারে রাখুন এবং cdinsert.reg ফাইলটি চালু করুনএবার সিডি বা ডিভিডি ড্রাইভের উপরের ডান বাটনে ক্লিক করে দেখুন Insert এসেছেএবার Eject করার পরে Insert ক্লিক করে দেখুন ড্রাইভ ডিক্স বন্ধ হচ্ছে

 

অনলাইন থেকে সরাসরি পিডিএফ তৈরী করা

বর্তমানে পিডিএফ (পোর্টেবল ডকুমেন্ট ফরমেট) বেশ জনপ্রিয় হয়ে উঠেছেফন্ট ঝামেলা এবং ডকুমেন্টের ফরমেট অক্ষুন্ন রাখতে পিডিএফ এর প্রয়োজন হয় বেশীকিন্তু পিডিএফ তৈরীর সফটওয়্যার আপনার কাছে না থাকেলেও অনলাইনে সরাসরি পিডিএফ তৈরী করা যায়এতে মাইক্রোসফট অফিস, ইমেজ, ওয়েব পেজ, হেল্প ফাইল, ভিজিএফ ফাইলকে পিডিএফ তৈরী করা এবং পিডিএফ ফাইলকে মাইক্রোসফট অফিসে রুপান্তর করা যায়এজন্য www.freepdfconvert.com  সাইটে যান এবার Source file অংশে Convert from এর File অপশন বাটনে সিলেক্ট থাকা অবস্থায় Browse বাটনে ক্লিক করে কম্পিউটারের ফাইল (অনলাইনের ফাইল হলে Convert from এর URL অপশন বাটনে সিলেক্ট করে ফাইলের ঠিকানা দিতে হবে) দেখিয়ে দিন এবার E-mail address অংশে আপনার ইমেইলের ঠিকানা লিখে Attach files to e-mail চেক বক্স চেক করে Convert বাটনে ক্লিক করুন তাহলে আপনার ফাইল আপলোড হবে এবং পিডিএফ ফাইলকে জিপ হিসাবে আপনার ইমেইলে পাঠিয়ে দেওয়া হবে

 

গুগলে দেখুন ব্যক্তিগত সার্চগুলো

একটি বিষয়ের উপরে আপনি অনেকদিন আগে গুগলে সার্চ করেছেন কিন্তু এখন সে বিষয়টি মনে করতে পারছেন না অথচ আপনার উক্ত বিষয়টি জরুরী দরকারআপনি যদি জিমেইল একাউন্ট খোলা রাখা অবস্থায় উক্ত বিষয়ে সার্চ করে থাকেন তাহলে আপনার কোন চিন্তা নেই, আপনার সার্চের বিষয়সহ কোন কোন ওয়েবসাইট খুলেছেন তার সমস্ত বিবরণ পাবেন গুগল পার্সনালাইজড সার্চে আপনি নিশ্চয় খেয়াল করেছেন আপনার জিমেইল একাউন্ট খোলা অবস্থায় গুগলে সার্চ করলে আপনার মেইল ঠিকানা গুগলের হোম পেইজের উপরের দিকে দেখা যায়এমতবস্থায় আপনি যত কিছু সার্চ করেন বা সার্চ করার পরে বিষয়ভিত্তিক ওয়েবসাইটগুলো খুলে থাকেন তার সবই মনে রাখবে গুগল পার্সনালাইজড সার্চঅর্থাৎ আপনার একাউন্ট একটিভ অবস্থায় আপনার খোঁজাখুঁজির সব খবরই গুগল পার্সনালাইজড সার্চ রেখে দিচ্ছেআপনি যদি সেসব দেখতে চান তাহলে www.google.com/psearch সাইট ঢুকুন এবার আপনার জিমেইল আইডি এবং পাসওয়ার্ড দিয়ে লগইন করুন, তাহলে দেখবেন আপনার সকল সার্চিং এর তারিখ, বার, সময় এবং বিষয়সহ সার্চ করার পর কোন কোন ওয়েবসাইট খুলেছেন তার সব হিসেবই আছেএখানে কিক করে আপনি পুনরায় আবার সার্চ করতে পারবেন বা পূর্বে খোলা ওয়েবসাইটে ক্লিক করে ওয়েবসাইট খুলতে পারেনএছাড়াও পছন্দের ওয়েবসাইটিকে এখানে বুকমার্ক করে রাখতে পারেন

 

ইন্টারনেট এক্সপ্লোরারের লগো পরিবর্তন করুন

ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার চালু করলে এর উপরে ডান কোণায় যে ডিফল্ট লগোটি দেখা যায়, আপনি ইচ্ছে করলে তার পরিবর্তে আপনার পছন্দের কোন ছবি বসিয়ে দিতে পারেনএর জন্য প্রথমেই আপনাকে 22*22 ডাইমেনশন বিশিষ্ট 256 (16 বিট) ফরম্যাটের একটি আইকন (*.ico) ফাইল বাছাই করতে হবেএবার এই ছবিটিকে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার আইকন হিসেবে সেট করতে হলে আপনাকে উইন্ডোজের রেজিস্ট্রি এডিট করতে হবে

এরজন্য প্রথমেই Start > Run এ গিয়ে REGEDIT টাইপ করে এন্টার দিয়ে রেজিস্ট্রি এডিটর ওপেন করুনএবার রেজিস্ট্রি এডিটর থেকে HKEY_CURRENT_USER\Software\Microsoft\Internet Explorer\Toolbar ওপেন করুনএখানে ডান পার্শ্বস্থ প্যানেলে SmBrandBitmap নামে একটি নতুন স্ট্রিং ভ্যালু তৈরি করুন এবং এটি ওপেন করে এর ভ্যালু হিসেবে আপনার বাছাই করা আইকনটির পাথ (যেমন D:\Toha Icon\New Logo.ico) লিখে এন্টার দিনএবার রেজিস্ট্রি বন্ধ করে ইন্টারনেট এক্সপ্লোরার চালু করে দেখুন এর লোগো হিসেবে আপনার পছন্দের আইকনটি দেখা যাচ্ছে

 

নিজের ওয়েব সাইটে গুগল সার্চ ইঞ্জিন

অনেকেরই ব্যাক্তিগত, বানিজ্যিক বা অনান্যকোন ওয়েব সাইট বা ব্লগ আছেনিচের ওয়েব সাইটে বা ব্লগে সার্চ ইঞ্জিন যোগ করতে কে না চাইআর তা যদি হয় বিশ্বের সবচেয়ে জনপ্রিয় সার্চ ইঞ্জিন গুগলের তাহলেতো কথায় নেইগুগল কাষ্টমাইজ সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহারের মজার বিষয় হচ্ছে এই সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করলে সার্চের ভিত্তিতে গুগল আপনাকে এ্যাডসেন্সের মত নির্দিষ্ট হারে অর্থ প্রদান করবে তাহলে আর দেরি কেন আজই আপনার সাইটে যুক্ত করুন গুগল সার্চ ইঞ্জিনরেজিষ্ট্রিশন পদ্ধতি: এজন্য আপনার গুগল একাউন্ট থাকতে হবেনা থাকলে গুগল (http://www.gmail.com) থেকে বিনামূল্যে একাউন্ট খুলে নিতে পারেন

এবার http://www.google.com/adsense সাইটে ঢুকুন Sign up now>> বাটনে ক্লিক করুন তাহলে গুগল এডসেন্‌স এর ফরম আসবে যা পূরন করে Submit Information ক্লিক করুনএখন প্রথম (I have an email address and password …….) অপশন বাটন নির্বাচন করুন এবং নতুন আরেকটি তালিকা আসলে I’d like to use my existing Google account for AdSense অপশন বাটন নির্বাচন করুন তাহলে নিচে লগইন বক্স আসবেএবার এখানে আপনার জিমেইল এবং পাওয়ার্ড লিখে Continue>> বাটনে ক্লিক করুনতাহলে রেজিষ্ট্রেশন শেষ হবেএরপরে গুগল আপনার জিমেইলে ১-২ দিনের মধ্যে এডসেন্‌স একটিভ করার জন্য মেইল করবেমেইলের লিংকে ক্লিক করলে আপনার এডসেন্‌স একটিভ হবে এবং তা মেইলের মাধ্যমে জানতে পারবেন

সার্চ ইঞ্জিন সংকেত: এবার http://www.google.com/adsense এ সাইনইন করে AdSense Setup ট্যাবে এরপরে Get Ads সাবট্যাবে এবং AdSense for Search এ ক্লিক করুন তাহলে এ্যাড সেন্স ফর সার্চ পেজ আসবেএখন আপনি যদি শুধু গুগলের সার্চ ইঞ্জিন ব্যবহার করতে চান তাহলে Google WebSearch অপশন বাটন নির্বাচন করুন আর যদি নিজস্ব ওয়েব সাইটের জন্য কাষ্টমাইজ সার্চ ইঞ্জিন তৈরী করতে চান তাহলে Google WebSearch + SiteSearch অপশন বাটন নির্বাচন করুন এবং নিচের টেক্সট বক্সে আপনার সাইটে ঠিকানা লিখুন এবং নিচের অংশগুলো ইচ্ছামত পরিবর্তন করুন এবার Continue>> বাটনে ক্লিক করুন ( এখানে আপনি সার্চ পেজকে নিজের মত করে সবকিছু পরিবর্তন করে নিতে পারেন) এবং পুনরায় Continue>> বাটনে ক্লিক করুন এখানে আপনি জাভাস্ক্রিপ্টের কোড পেয়ে যাবেন যা আপনার ওয়েব পেজে বা ব্লগে ব্যবহার করতে পারবেন

 

পার্সোনাল কম্পিউটারে কিভাবে আপনার গোপন ফাইলটি নিরাপদে রাখবেন?

আপনার বাড়িতে অন্যান্য ইউজারের হাত থেকে আপনার প্রয়োজনীয় ফাইলটি নিরাপদে বা লুকিয়ে রাখার জন্য এই টিপটি খু্বই উপকারীএকটু ভাবুন যদি একটি বাড়িতে অথবা একটি অফিসে অনেকজন ইউজার একই কম্পিউটার ব্যবহার করে, তাহলে এর মধ্যে আপনার ব্যক্তিগত ফাউলগুলো ১০০% নিরাপত্তার কোন ব্যবস্থা থাকে নাআপনি হয়তো বা ৩য় কোন সফ্‌টওয়্যার ব্যবহার করবেন আপনার ফাইলটির নিরাপত্তার জন্য, কিন্তু আপনার মাইক্রোসফ্‌ট উইন্ডোজ এ এর কোন প্রয়োজনই নেইআপনি উইন্ডোজ (এক্সপি, ২০০৩, ভিসটা) এ এট্রিব কমান্ড ব্যবহার করে সহযেই আপনার ফাইল অথবা ফোল্ডারটির এট্রিবিউট (রিড অনলি, হিডেন) চেন্ঞ্জ করতে পরেন, এবং আপনার ফাইলটিকে দিতে পারেন ১০০% নিরাপত্তা

নিন্মানুসারে ফাইল/ফোল্ডারের এট্রিবিউট (Attribute) এডিট করতে হয়:-

১. এটা করার জন্য আপনার কম্পিউটারটি অবশ্যই এডমিনিস্ট্রেটরে (Administrator) লগ ইন হতে হবে

২. এবার আপনা আপনার যে ফাইল/ফোল্ডারটি হাইড করতে পান তার পাথটি ভাল করে দেখে নিন(উদাহরণস্বরুপ ধরুন আমার কম্পিউটারে D:\ ড্রাইবে borhan নামে একটি ফোল্ডার আছে)

৩. প্রথমে start মেনু থেকে run ডায়ালগ বক্স খুলুন, এর মধ্যে সিএমডি (cmd) লিখে ok চাপুন 

৪. এবার টাইপ করুন এই কমান্ডটি “attrib +s +h D:\borhan” এবং ইন্টার চাপুন কমান্ডটি এক্সিকিউটের জন্য

৫. এই কমান্ডটি আপনার D:\ ড্রাইব থেকে borhan নামের ফোল্ডারটি হাইড করে ফেলবেআপনি পরীক্ষা করে দেখতে পারেন

৬. অন্য কেই এই ফোল্ডারটি আনহাইড করতে পারবে না “Show hidden files and folders” অপশনটি ব্যবহার করে ও নয়

৭.  আপনি যখন ফোল্ডারটি আনহাইড করতে পান তখন আবার কমান্ড প্রম্পট খুলুন এবং এই কমান্ডটি “attrib -s -h D:\borhan” টাইপ করে এন্টার চাপুন, তাহলে আপনার ফোল্ডারটি আনহাইড হয়ে যাবে

(বিশেষ দ্রষ্টব্য:- আপনি যদি কোন ফোল্ডার হাইড/আনহাইড করতে চান তাহলে আপনাকে কমান্ড দেওয়ার সময় শুধু ফোল্ডারের নাম টাইপ করলেই চলবে, কিন্তু যদি কোন ফাইল হাইড/আনহাইড করতে হয় তাহলে আপনাকে কমান্ড দেওয়ার সময় ফাইলটির নাম সহ ফাইল টাইপটি লিখতে হবেযেমন:- .jpeg , .mpeg , .rar , .doc etc)

 

মাই প্রপার্টিজে ছবি ও ব্যক্তিগত তথ্য

উইন্ডোজের মাই কম্পিউটারে প্রোপার্টিজ থেকে কম্পিউটার কার নামে নিবন্ধন করা হয়েছে, র‌্যাম কত, প্রসেসর কত, অপারেটিং সিস্টেমের নাম ও সংস্করণ দেখা যায়। ইচ্ছে করলে আপনি এখানে আরও যোগ করতে পারেন ব্যক্তিগত কিছু তথ্য ও ছবি। এ জন্য নিচের ধাপগুলো অনুসরণ করুন। প্রথমে C:/windows/system32-এ গিয়ে oeminfo.ini ফাইলটি খুলুন। এবার নিচের তথ্যগুলো যোগ করুন একে একে।

[General]
Manufacturer= Mamun Mollick
Model = Khulna
[Support Information]
Line-1 = Mamun Mollick
Line2 = ZF
Line3=0171XXXXX
Line4=mamunmck@yahoo.com
Line5= http://www.mollick.co.cc
Line6= Bondhushava

উল্লেখ্য, এখানে আপনি Manufacturer, Model-এর ক্ষেত্রে ইচ্ছেমতো তথ্য দিতে পারেন। এ ছাড়া [Support Information]-এ যত ইচ্ছে লাইন যোগ করতে পারেন একইভাবে। আরেকটি কথা, যদি কোনো কারণে System32-oeminfo.ini ফাইলটি না পান, তবে নোটপ্যাড খুলে উপরিউক্ত ভাগে প্রোগ্রামটি লিখে নিতে পারেন এবং সবশেষে oeminfo.ini  নামে C:WINDOWS/system32-তে সেভ করতে হবে।

প্রোপার্টিজে আপনি আপনার ছবিও যোগ করতে পারেন। এ জন্য প্রথমে ছবিটিকে .bmp ফরম্যাটে আনতে হবে। এসিডি সি বা ফটোশপের মতে সফটওয়্যারের সাহায্যে .jpg  ফরম্যাটের ছবিকে .bmp  ফরম্যাটে আনা যায় সহজেই। ছবিটির আকার ১৫০  ি১৪০ হলে ভালো দেখা যাবে প্রোপার্টিজে। এবার ছবিটি সপশলসবস নামে সেইভ করুন C:/Windows/system32-তে এখন Refresh করে বেরিয়ে আসুন। এবার মাই কম্পিউটারে গিয়ে প্রোপার্টিজে গেলেই আপনার ছবি ও ব্যক্তিগত তথ্য দেখা যাবে।

 

____________________________________________________________

Advertisements
কম্পিউটার টিপস্-04 তে মন্তব্য বন্ধ
%d bloggers like this: