জীবন গড়ি কোরআনের আলোয়

জীবন গড়ি কোরআনের আলোয়

 

সমগ্র মানবজাতির জন্য পবিত্র কোরআনুল করীম চিরন্তন সংবিধান। এই চিরন্তন সংবিধানের ব্যাখ্যাকারী, স্বীয় বাস্তবজীবনে অনুসরণকারী আমাদের মহানবী হজরত রাসূলে মকবুল (স.)। আল্লাহর রাসূল (স.) পবিত্র কোরআনের আলোকে আদর্শ বিশ্ববাসীর কাছে স্থাপন করে গেছেন। তা চিরকালের জন্য অনুসরণীয়-অনুকরণীয়। আল্লাহ পাক স্বয়ং কোরআনুল মজিদে ঘোষণা করেছেন, ‘লাক্কাদ কানালাকুম ফি রাসূলিল্লাহি উসওয়াতুন হাসানা।’ অর্থাত্ নিশ্চয়ই আল্লাহর রাসূলের জীবনে তোমাদের জন্য সুন্দর চমত্কার আদর্শ রয়েছে। তাই মানবজীবন গঠন করার জন্য মহানবী হজরত রাসূলে মকবুল (স.)-এর কাছে আল্লাহর তরফ থেকে যে ওহি প্রত্যাদেশ, আইন, বিধান, অনুশাসনপ্রাপ্ত হয়েছেন, তা-ই আমাদের শুধু সহায় বা পাথেয় যা পালন করা অতীব কর্তব্য। আল্লাহ পাক মানবজাতিকে সৃষ্টি করেছেন তাঁর খলিফা, প্রতিনিধি হিসেবে। মানুষ যাতে পথভ্রষ্ট হয়ে ধ্বংসপ্রাপ্ত না হয়, সেজন্য তিনি ইসলামকেই শুধু জীবনব্যবস্থারূপে আমাদের জন্য মনোনীত করেছেন। পবিত্র কোরআনে বিশেষভাবে বলা হয়েছে, সর্বশক্তিমান আল্লাহ রাব্বুল আলামিনের একমাত্র দ্বীন, ধর্ম বা জীবনব্যবস্থা হলো ইসলাম এবং পবিত্র কোরআনের দৃষ্টিতে মানবজীবনের লক্ষ্য হচ্ছে, আল্লাহ পাকের রাজি, খুশি, সন্তুষ্টি অর্জনের মাধ্যমে ইহকালীন/আখেরাতে পরিত্রাণ পাওয়া। কাজেই আমাদের সর্বোত প্রচেষ্টা থাকতে হবে, আমাদের গোটা জীবন মৃত্যু পর্যন্ত পবিত্র কোরআনের আলোকে গড়ে তোলা। এ সম্পর্কে আল কোরআনে আরও বলা হয়েছে, ‘ওমা খালাকতুল জিন্না ওয়াল ইনসা ইল্লা লিয়াবুদুন’, অর্থাত্ আমি মানব ও জিন জাতিকে কেবল আমার ইবাদত করার জন্যই সৃষ্টি করেছি। তাই পবিত্র ইসলামে পরিবার, সমাজ এবং আন্তর্জাতিক ক্ষেত্রে শান্তি প্রতিষ্ঠায় ভূমিকা অনস্বীকার্য। জীবন গঠন ও জীবন ধারণের জন্য ইসলামী নীতিমালা, জীবনব্যবস্থা প্রতিষ্ঠা করা অবশ্য কর্তব্য। বলার অপেক্ষা রাখে না, এটা সর্বতোভাবে বাস্তব সত্য মানুষের অধিকার রক্ষা, সমাজ ও রাষ্ট্রের প্রতি নাগরিকদের দায়িত্ব, সামাজিক, নৈতিক অপরাধ নির্মূলে পবিত্র কোরআনে সুস্পষ্ট নির্দেশনা রয়েছে, যা সর্বকালের জন্য অনুসরণীয়। বাস্তবক্ষেত্রে এটা পালনীয় ও করণীয় যাতে কোনো সন্দেহের অবকাশ নেই। পরকালীন জীবনে মুক্তির জন্য, জান্নাতপ্রাপ্তিতে পবিত্র কোরআনের অনুসৃত বিধান অনুযায়ী আমল-আখলাকে জীবন পরিচালনা করা প্রত্যেক ঈমানদার ব্যক্তির জন্য অবশ্য অবশ্য পালনীয়। পবিত্র কোরআন তেলাওয়াত শিখে, বুঝে, খুঁজতে হবে জীবনের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত পবিত্র কোরআনের অনুসরণ, মহানবী হজরত রাসূলে পাক (স.)-এর অতুলনীয় মহান আদর্শ। অর্থাত্ সুন্নাতে রাসুলুল্লাহ (স.) এর মহান শিক্ষা, মহান পথচলা মানুষের জীবনকে মহত্তম করে গড়ে তোলে। মহত্তম আদর্শের উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত শুধু আমাদের রাসূলে মকবুল (স.) তাঁর ব্যক্তিগত চরিত্র ছিল সব নবী-রাসুল ও সংস্কারকদের চেয়ে সর্বশ্রেষ্ঠ এবং তাঁর সব চিন্তা ও কর্মের মহত্-উন্নত মানুষের রূপ বিদ্যমান। মহানবী (স.) নিজে যা নৈতিক শিক্ষা-আদর্শের কথা বলতেন, গৃহের পরিবেশেও তিনি সেই অনুসারে চলতেন। একবার হযরত আয়শা (রা.) কে জিজ্ঞেস করা হয়েছিল হজরত রাসূলে পাক (স.)-এর স্বভাব চরিত্র কেমন ছিল? উত্তরে তিনি বলেছিলেন- তাঁর স্বভাব ছিল হুবহু কোরআনেরই দৃষ্টান্ত। এছাড়া হজরত আয়শা সিদ্দিকা (রা.) আরও বলেছেন, আল্লাহর পেয়ারা হাবীব হজরত (স.) কাউকে তিরস্কার করতেন না। মন্দ, খারাপ ব্যবহার করতেন না। বরং ক্ষমা করে দিতেন।
অতএব, যে মহত্ চরিত্র আমাদের জীবনকে করবে উন্নত, যে সুন্দরতম চরিত্র আমাদের জন্য হবে উজ্জ্বল দৃষ্টান্ত, সেই চরিত্রের বিকাশ আমাদের মধ্যে অনুপস্থিত। তাই পবিত্র কোরআনের আলোকে জীবন গঠনের জন্য মানবিক গুণাবলি অর্জন করা আমাদের অত্যন্ত প্রয়োজন। এই দুনিয়ার জীবনে সফলকাম মানুষ সেই ব্যক্তি, যার মধ্যে দৃঢ় সংকল্প এবং উচ্চাকাঙ্ক্ষা, ধৈর্য, সহনশীলতা, বীরত্ব, সাহস, ত্যাগের মহিমা, সংযম, আত্মসংযম, ওয়াদা পালন, আনুগত্য, নিষ্ঠা, পবিত্রতা, ভদ্রতা, সৌজন্য ও নিষ্ঠাচার প্রভৃতি গুণ বিদ্যমান। এসব গুণ গরিমার মহিমায় শাশ্বত মানবিক মূল্যবোধের বিকাশ, উন্নয়ন ও পূর্ণতাসাধিত হয়। প্রসঙ্গত আমার আশা দেশের সর্বত্র হিফজুল কোরআন মাদরাসা, কোরআনিক শিক্ষাকেন্দ্র, প্রতিষ্ঠা করতে সরকার ও ধনাঢ্য, বিত্তশালী, শিল্পপতি ও সামর্থ্যবান মানুষকে এগিয়ে আসার আহ্বান জানাই এবং এ দ্বারা আমরা যেন সত্যিকার শিক্ষালাভ করে কামেলে ইনসান হই।

Leave a Reply

Fill in your details below or click an icon to log in:

WordPress.com Logo

You are commenting using your WordPress.com account. Log Out / পরিবর্তন )

Twitter picture

You are commenting using your Twitter account. Log Out / পরিবর্তন )

Facebook photo

You are commenting using your Facebook account. Log Out / পরিবর্তন )

Google+ photo

You are commenting using your Google+ account. Log Out / পরিবর্তন )

Connecting to %s

%d bloggers like this: